ঢাকাসোমবার , ১০ অক্টোবর ২০২২
  1. অপরাধ,দূর্নীতি
  2. আন্তর্জাতিক
  3. কৃষি সংবাদ
  4. ক্যাম্পাস
  5. খেলাধুলা
  6. গ্রামবাংলা
  7. জাতীয়
  8. ধর্ম,সাহিত্য
  9. ফিচার
  10. ফেসবুক কর্নার
  11. বিনোদন
  12. মুক্তমত
  13. রকমারি
  14. রাজনীতি
  15. লাইফস্টাইল
আজকের সর্বশেষ সবখবর

লালমনিরহাটে চিশতি দেখালেন, নেতারা দেখলেন অত:পর কমিটি স্থগিত

অনলাইন ডেস্ক
অক্টোবর ১০, ২০২২ ৪:২৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

লালমনিরহাট প্রতিনিধি –

লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে মরহুম সামসুল ইসলাম সুরুজপুত্র, কমলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান  মাহমুদ ওমর চিশতি নিজেকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে নিজের প্রার্থীতা ঘোষনা করে যোগ দেন সম্মেলন মঞ্চে। দেখালেন তার প্রতি নেতাকর্মীদের বিপুল সমর্থন। পুরো সম্মেলনের মাঠ ছিল চিশতির  কর্মী-সমর্থকদের দখলে। সম্মেলনে আগত অতিথিরাও দেখলেন, কমিটি স্থগিত করে অত:পর ফিরলেন ঢাকায়।  

 গত শনিবার (৮ অক্টোবর) বিকালে  আদিতমারী সরকারী জিএস স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত হয়  উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক  সম্মেলন।

এ সম্মেলনকে  ঘিরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা যতটা উজ্জীবিত ছিল আবার ততটাই উৎকণ্ঠা নিয়েই সম্মেলন স্থলে স্বতফুর্ত অংশগ্রহন করেছেন। সম্মেলনকে ঘিরে উপজেলা জুড়ে সাজো সাজো রব বিরাজ করছিল। নির্মিত হয়েছিল অধর্শতাধিক তোরণ। সম্মেলন মাঠ পরিনত হয় জনসমুদ্রে। 

সরেজমিনে জানা যায়, আদিতমারী উপজেলার রাজনীতি ত্রি-ধারায় বিভক্ত হয়ে পড়েছে। একটি অংশের নেতৃত্বে রয়েছে সমাজকল্যানমন্ত্রী নূরুজ্জামান আহমেদ এমপি, একটি অংশে এফবিসিআই এর সাবেক পরিচালক, জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি সিরাজুল হক অপর অংশটি নেতৃত্ব দেন কমলাবাড়ি ইউনিয়নের ৫ বারের চেয়ারম্যান, লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রয়াত সামছুল ইসলাম সুরুজের দুইপুত্র আদিতমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল কায়েস ফারুক ও কমলাবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদ ওমর চিশতি। 

আওয়ামী লীগ টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়ার কারনে দলে জামাত বিএনপির অনেক নেতাই আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করে। এসকল অনুপ্রবেশকারীদের দৌরাত্ব আর মাইনাস টু ফর্মুলার বাস্তবায়নের প্রচেষ্টার কারনে  দীর্ঘদিন ধরে আদিতমারী উপজেলার নেতৃত্বদানকারী সিরাজুল হক ও প্রয়াত সামছুল ইসলাম সুরুজ পরিবারকে কোনঠাসা করে রাখার কারনে গ্রুপিং সক্রিয়ভাবে মাথাচারা দিয়েছে বলে মত প্রকাশ করেছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা। 

আদিতমারীর স্থানীয় বাসিন্দারা মনে করেন, বিগত উপজেলা নির্বাচনে ইমরুল কায়েস ফারুক কে দলীয় মনোনয়ন না দেয়া, পরে উক্ত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ফারুকের বিপুল ভোট ব্যবধানে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসাবে উপজেলা চেয়ারম্যান হিসাবে নিবাচিত হওয়া, অনুরুপ ভাবে তার ছোটভাই মাহমুদ ওমর চিশতিকে কমলাবাড়ি ইউপি নির্বাচনে মনোনয়ন না দিয়ে কান্তেশ্বর কে মনোনয়ন দেয়া পরবর্তী কালে দলীয় সভানেত্রীর হস্তক্ষেপে চিশতি মনোনয়ন নিয়ে চেয়ারম্যান পদে জয়লাভ এবং স্থানীয় ইউনিয়ন সম্মেলনগুলোতে তাদের মাইনাস করে কমিটি গঠন ইত্যাদি বিষয়কে ঘিরে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগে গ্রুপিং সৃস্টি হয়েছে। এসকল বিষয়কে কেন্দ্র করে আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে তৃনমুল নেতাকর্মী চিশতির পক্ষে জোরালো অবস্থান গ্রহন করে ফলে সম্মেলনে কমিটি ঘোষণা করতে না পেরে কেন্দ্রীয় দলীয় নেতারা পুলিশি পাহারায় সম্মেলন স্থল ত্যাগ করে লালমনিরহাট সার্কিট হাউজে চলে যান। সার্কিট হাউজেও রাতভর আলোচনা করেও কমিটি ঘোষণা করতে না পেরে রবিবার সকালে কেন্দ্রীয় নেতারা ঢাকার উদ্দেশ্য রওয়ানা দেন বলে জানা গেছে। 

দলীয় নেতাকর্মীদের অভিমত আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের এ গ্রুপিং চলমান বা নিরসন করা না গেলে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর চরম ভরাডুবি ঘটতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। 

গত ২২ শে সেপ্টেম্বর /২০২২ কালীগঞ্জ আ:লীগ সম্মেলনে-উপজেলা চেয়ারম্যান  মাহবুবুজ্জামান আহমেদ।


অপর দিকে গত ২২ শে সেপ্টেম্বর কালীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে তেমন কোন উত্তোজনা দেখা না গেলেও এ উপজেলায় সমাজকল্যানমন্ত্রী খোদ আপন সহদর ছোটভাই জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি, কালীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ২বারের নৌকা প্রতিকে মনোনীত চেয়ারম্যান মাহবুবুজ্জামান আহমেদ সহ গ্রুপিং রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। ফলে মন্ত্রীর নিজ উপজেলা কালীগঞ্জেও আওয়ামী লীগ দুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে উভয় গ্রুপকে পৃথক পৃথক কর্মসুচি পালন করতে দেখা যাচ্ছে। ফলে তৃনমুলের দলীয় নেতাকর্মীরা পড়েছেন বিপাকে। এমনকি গ্রুপিং রাজনীতির কারনে দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত ত্যাগী কর্মীরা অবহেলা অবমুল্যায়ন ও পদ বন্চিত হচেছ বলে অভিমত প্রকাশ করেছেন অনেকে। 

লালমনিরহাট -২ ( আদিতমারী-কালীগঞ্জ) আসনে আগামী দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে দলটি চরম বিপর্যয়ে মুখে পড়বে মনে করেন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দরা। তারা মনে করেন এসকল গ্রুপিং রাজনীতি দ্রুত সমাধান করে দলের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করা প্রয়োজন। 

 আদিতমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের  ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রবিউল ইসলাম মানিক এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান। বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের রংপুর বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন শফিক, কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাডভোকেট সফুরা বেগম রুমি, সমাজকল্যাণমন্ত্রী নুরুজ্জামান আহমেদ এমপি,   লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন এমপি, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। 

 এ সময় বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনার সরকার সন্ত্রাসের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে চায় জামাত-বিএনপি জোট। তাদের এ পরিকল্পনা কোন মতেই বাস্তবায়ন করতে দেবে না দেশের সাধারণ মানুষ। তারা আবারও নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে দেশরত্ন শেখ হাসিনাকে পুনরায় সরকার পরিচালনায় দায়িত্ব দেবেন।

আদিতমারী উপজেলা আ. লীগের ত্রি-বার্ষিক সন্মেলন বিষয়ে লালমনিরহাট-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আ. লীগের  সভাপতি মোতাহার হোসেন বলেন, অনিবার্য কারণে সম্মেলনে কমিটি ঘোষনা স্থগিত রাখা হয়েছে। পরবর্তী দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক কমিটি ঘোষণা করা হবে।

এই সাইটে প্রতিনিধির পাঠানো নিজস্ব নিউজ তৈরির পাশাপাশি বিভিন্ন নিউজ সাইট থেকে খবর সংগ্রহ করে সংশ্লিষ্ট সূত্রসহ প্রকাশ করে থাকি। তাই কোন খবর নিয়ে আপত্তি বা অভিযোগ থাকলে সংশ্লিষ্ট নিউজ সাইটের কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগ করার অনুরোধ রইলো।বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ।